Connect with us

ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগ

অ্যানফিল্ডে রেকর্ডের রাত, টটেনহামকে হারিয়ে শীর্ষে লিভারপুল

প্রথমার্ধে পিছিয়ে পড়েও জর্ডান হেন্ডারসন এবং মোহাম্মদ সালাহর গোলে টটেনহামকে ২-১ গোলে হারিয়েছে লিভারপুল।

প্রকাশিত

তারিখ

সালাহর গোলেই জয় নিশ্চিত হয় লিভারপুলের। ছবিঃ এএস

প্রথমার্ধে পিছিয়ে পড়েও জর্ডান হেন্ডারসন এবং মোহাম্মদ সালাহর গোলে টটেনহামকে ২-১ গোলে হারিয়েছে লিভারপুল। এ জয়ে অনন্য এক রেকর্ডে ভাগ বসালো লিভারপুল। অ্যানফিল্ডে লিভারপুল সর্বশেষ হেরেছিল এপ্রিল, ২০১৭ তে ক্রিস্টাল প্যালেসের কাছে ২-১ গোলে। এরপর ঘরের মাঠে টানা ৪৫ ম্যাচ অপরাজিত থাকল লিভারপুল।

প্রিমিয়ার লিগের প্রথম ১০ ম্যাচে চেলসি এবং ম্যানচেস্টার সিটির সবচেয়ে বেশি পয়েন্টের (২৮) রেকর্ডে সমান ভাগ বসানোর সুযোগ এসেছিল তাদের। এ জয়ে সেটিও পূর্ণ হয়ে গেলো।

অবশ্য নিজেদের মাঠে ম্যাচের বেশির ভাগ সময় হারের শঙ্কাই চেপে ধরেছিল লিভারপুলকে। ম্যচের প্রথম মিনিটেই গোল খেয়ে বসে তারা। ম্যাচের প্রথম মিনিটেই লিভারপুলের তিনজনকে কাটিয়ে মুসা সিসোকো বাঁ-প্রান্তে হিউঙ-মিন সনকে পাস বাড়ান ।

সনের শট লিভারপুল রাইটব্যাক ট্রেন্ট আলেকজান্ডার-আর্নল্ডের মাথায় লেগে প্রতিহত হয় ক্রসবারে, ফিরতি বলে হেড করে টটেনহামকে এগিয়ে দেন হ্যারি কেইন।

একটু পরেই ব্যবধান বাড়ানোর সুযোগ পায় স্পার্সরা। ক্রিশ্চিয়ান এরিকসেনের শট অল্পের জন্য চলে যায় পোস্টের বাইরে দিয়ে। গোল পরিশোধে মরিয়া লিভারপুল এরপর একের পর এক আক্রমণ চালিয়েছে। কিন্তু টটেনহাম গোলরক্ষক পাউলো গাৎজানিগা ছিলেন অবিশ্বাস্য ফর্মে।

প্রথমার্ধেই লিভারপুলের অন্তত চারটি নিশ্চিত গোল ফিরিয়ে দিয়েছেন তিনি। সালাহ, আলেকজান্ডার-আর্নল্ডের শট ফেরানোর পর সাদিও মানের বাঁকানো শটও হাওয়ায় ভেসে ফিরিয়ে দেন তিনি। ক্লাব অধিনায়ক হুগো লরিসের ইনজুরিতে দলে সুযোগ পেয়েই নিজেকে চেনাচ্ছেন গাৎজানিগা।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই লিড দ্বিগুন করার সুযোগ পায় টটেনহাম। কিন্তু ভাগ্য হয়ত আজ অন্য কিছু লিখে রেখেছিল। তাই সনের শট প্রতিহত হয় ক্রসবারে। সহজ সুযোগ হাতছাড়া করার ফল এরপর সুদে-আসলে বুঝিয়ে দিয়েছে লিভারপুল।

৫২ মিনিটে ফাবিনহোর লম্বা পাসে বাঁ-পায়ের মাপা শটে চার বছর পর অ্যানফিল্ডে গোল করেন অধিনায়ক হেন্ডারসন। গোলরক্ষক পাউলো গাৎজানিগা এবার আর পারলেন না বালির বাঁধের মত আক্রমণ থামাতে। সমতা ফেরার পরেই যেনো আরো ধার বাড়ায় লিভারপুল, অপরদিকে রক্ষণাত্মক টটেনহাম।

৭৫ মিনিটে আসে সেই কাঙ্ক্ষিত রেকর্ড গড়া গোল। মানেকে ডিবক্সে ফেলে দেন স্পার্স রাইটব্যাক সার্জ অরিয়ের, পেনাল্টির বাঁশি দেন রেফারি। ‘ভিএআর’ ব্যবহার করেও রেফারির পেনাল্টির আবেদন পরিবর্তন করতে পারেনি টটেনহাম।

পেনাল্টি থেকে গোল করে দলকে ২-১ গোলে এগিয়ে নেন সালাহ। শেষ পর্যন্ত ২-১ গোলে জিতেই মাঠ ছাড়ে লিভারপুল। জয় নিয়ে ফিরলেও লিভারপুল শিবিরে দুঃসংবাদ; দ্বিতীয়ার্ধে ইনজুরিতে পড়ে মাঠ ছেড়েছেন সালাহ।

এ জয়ে ম্যানচেস্টার সিটির চেয়ে ৬ পয়েন্টে এগিয়ে শীর্ষে থাকল লিভারপুল। শেষ যে তিনবার ১০ ম্যাচ শেষে ২৮ পয়েন্ট ছিল প্রিমিয়ার লিগের শীর্ষস্থানীয় দলগুলোর; প্রতিবারই চ্যাম্পিয়ন হয়েছে তারা। এবার কি পারবে লিভারপুল?

পুরোটা পড়ুন
কমেন্ট করুন/দেখুন

ট্রেন্ডিং টপিক