Connect with us

আন্তর্জাতিক

বিশ্বকাপ জিততে চান না মেসি!

বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হতে কে না চায়! কিন্তু তা হতে আমি নিজের ক্যারিয়ারের কোনো কিছুই পাল্টাব না।

প্রকাশিত

তারিখ

নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে আর্জেন্টিনা দলে মেসি
আর্জেন্টিনার হয়ে এখনো শিরোপা জিততে মুখিয়ে আছেন মেসি। ছবিঃ এপি

বার্সালোনার হয়ে ক্লাব ফুটবলের প্রায় সব শিরোপা জিতলেও দেশের জার্সি গায়ে বরাবরই খালি হাতে ফিরেছেন লিওনেল মেসি। আর্জেন্টিনার হয়ে আন্তর্জাতিক কোনো টুর্নামেন্টের শিরোপাজয়ের আক্ষেপ ঘোচেনি লিওনেল মেসির।

২০১৪ বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠেও জিততে পারেননি আরাধ্য শিরোপা। বিশ্বকাপ জয়ের স্বপ্ন তো থাকে সব ফুটবলারেরই। আচ্ছা, ক্লাব ফুটবলে জেতা সব শিরোপার বিনিময়ে কি বিশ্বকাপ নিজের করে নিতে চাইবেন মেসি?

উত্তর, ‘না’। ক্যারিয়ারের সব শিরোপার বিনিময়ে বিশ্বকাপ হাতে তোলার কোনো ইচ্ছা নেই মেসির।আর্জেন্টিনার সংবাদমাধ্যম ‘টিওয়াইসি স্পোর্টসকে’ সাক্ষাৎকারে মেসি জানিয়ে দিলেন ক্যারিয়ারের সব শিরোপার বিনিময়ে বিশ্বকাপ হাতে তোলার কোনো ইচ্ছা নেই তার। মেসি বলেন, ‘বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হতে কে না চায়! কিন্তু তা হতে আমি নিজের ক্যারিয়ারের কোনো কিছুই পাল্টাব না।

সৃষ্টিকর্তাই এসব আমাকে দিয়েছেন। কীভাবে এর মধ্য দিয়ে এসেছি তা কল্পনাও করতে পারি না। এটা কল্পনার চেয়েও বড়।’

অথচ রাশিয়া বিশ্বকাপের আগে আর্জেন্টিনার টিভি চ্যানেল এল ত্রেসিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে মেসি বলেছিলেন জাতীয় দলের হয়ে বিশ্বকাপ জিততে ক্লাব ক্যারিয়ারের সব ট্রফিই উজাড় করে দেবেন। মেসির ভাষ্য ছিল, ‘আমি জাতীয় দলের হয়ে একটি ট্রফির জন্য বার্সেলোনার সব ট্রফি বদল করতে রাজি আছি। আর্জেন্টিনার হয়ে একটি ট্রফি জেতা বিশেষ কিছু।’

২০০৫ সাল থেকে আর্জেন্টিনা জাতীয় দলে খেলছেন মেসি। এক যুগের বেশি সময়ে দুইবার কোপা আমেরিকার ফাইনাল ও একবার বিশ্বকাপের ফাইনালে খেলেছেন। কিন্তু প্রতিবারই খালি হাতে ফিরতে হয়েছে তাকে। অথচ এ সময়ের মধ্যে ছয়বার ব্যালন ডি’অর জিতেছেন বার্সেলোনা তারকা। আর তা সবই পেয়েছেন ক্লাবের হয়ে পারফর্ম করার কারণেই।

১৯৯৩ সালে শেষবার কোনো আন্তর্জাতিক শিরোপা জিতেছিল আর্জেন্টিনা। এরপর গত ২৬ বছরে বিশ্বকাপসহ বেশ কয়েকটি প্রতিযোগিতার ফাইনাল খেললেও চ্যাম্পিয়ন হতে পারেনি আলবিসেলেস্তেরা। মেসির নেতৃত্বে চলতি বছরের (ব্রাজিল) কোপায় তাদের অভিযান শেষ হয় সেমিতে গিয়ে। ফলে রেকর্ড ছয়বারের বর্ষসেরা এই ফুটবলারের জাতীয় দলের জার্সিতে প্রাপ্তির খাতাটা শুন্যই রয়ে গেছে।

২০১৬ সালে কোপা আমেরিকার শতবর্ষীয় আসরের ফাইনালে হারের পর জাতীয় দলকে আলবিদা বলে দিয়েছিলেন মেসি। দিয়েগো ম্যারাডোনা, আর্জেন্টিনার প্রেসিডেন্টের অনুরোধে অবসর ভেঙে ফিরে আসেন তিনি।

এরপর বিশ্বকাপ থেকে আর্জেন্টিনার ছিটকে যাওয়ার পর গ্রহের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় লিওয়েন মেসি জানিয়েছিলেন, বিশ্বকাপ না জেতা পর্যন্ত কোন ভাবে অবসর নিতে রাজি নন তিনি।

উল্লেখ্য, চলতি বছরে ব্রাজিল ও উরুগুয়ের বিপক্ষে দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে আর্জেন্টিনা। দীর্ঘদিন পর এ দুটি ম্যাচের মধ্য দিয়ে জাতীয় দলের জার্সিতে ফিরছেন মেসি (নিষেধাজ্ঞায় ছিলেন মেসি) ও সার্জিও আগুয়েরো।

১৫ নভেম্বর সৌদি আরবের রিয়াদে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ব্রাজিলের মুখোমুখি হবে আর্জেন্টিনা। এরপর ১৯ নভেম্বর ইসরাইলের তেলআবিবে উরুগুয়ের বিপক্ষে মাঠে নামবে লিওনেল স্কালোনির শিষ্যরা।

পুরোটা পড়ুন
কমেন্ট করুন/দেখুন

ট্রেন্ডিং টপিক