Connect with us

এডিটরিয়াল

প্রতিপক্ষের মাঠে সাঁত এতিয়েনকে উড়িয়ে দিল পিএসজি

প্রকাশিত

তারিখ

সাঁত এতিয়েনের ঘরের মাঠে তাদের ৪-০ গোলে পরাজিত করে  ফরাসি লিগের পয়েন্ট টেবিলে প্যারিস সেইন্ট জার্মেইন ( পিএসজি) তাদের অবস্থান আরও পাকাপোক্ত করল।
রোববার রাতে পিএসজির হয়ে কিলিয়ান এমবাপ্পে দুটি এবং দুই আর্জেন্টাইন মাউরো ইকার্দি ও লেয়ান্দ্রো পারেদেস বাকি দুইটি গোল করেন। তবে দলের উড়ন্ত জয়ের দিনে পেলান্টি মিস করেন ব্রাজিলিয়ান তারকা নেইমার জুনিয়র।
শুরু থেকেই আধিপত্য বিস্তারকারী পিএসজি মাত্র নবম মিনিটে এগিয়ে যায়।  তবে প্রথম সুযোগটা স্বাগতিক দলই পেয়েছিল মাত্র চার মিনিটেই। ডেনিস বওনাগার সেই সুযোগ কাজে লাগাতে পারেন নাই।
নবম মিনিটে হুয়ান বের্নাতের শট গোললাইন থেকে প্রতিপক্ষ ডিফেন্ডার বিপদমুক্ত করলে ডি-বক্সের বাইরে বল পেয়ে যান পারেদেস। দারুণ এক ভলিতে লক্ষ্যভেদ করেন আর্জেন্টাইন মিডফিল্ডার।
তিন মিনিট পর এমবাপ্পে প্রতিপক্ষের জালে বল জড়ালেও অফ-সাইডের কারণে রেফারি গোলের বাঁশি বাজাননি।
২৫তম মিনিটে পারেদেসকে বাজে ট্যাকল করে সরাসরি লাল কার্ড দেখেন সাঁত এতিয়েনের মিডফিল্ডার জঁ-উদ। প্রতিপক্ষের একজন খেলোয়াড় কম থাকার সুযোগ পুরোপুরি কাজে লাগায় পিএসজি। একের পর এক আক্রমণে সাঁত এতিয়েনের রক্ষণে চাপ তৈরি করে সফরকারীরা।
৪৩তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন এমবাপ্পে।  নেইমারের থ্রু বল ধরে প্লেসিং শটে জাল খুঁজে নেন ফরাসি ফরোয়ার্ড।
৫৫তম মিনিটে আনহেল দি মারিয়ার বাঁ পায়ের শট ফেরে ডান দিকের পোস্টে লেগে। সাত মিনিট পর নেইমারের স্পট কিকও ফেরে একই পোস্টে লেগে। ব্রাজিলিয়ান তারকা নিজেই ডি-বক্সে ফাউলের শিকার হলে পেনাল্টি পেয়েছিল পিএসজি।
৭২তম মিনিটে তৃতীয় গোলটি করেন ইকার্দি। লেইভিন কুরজাওয়ার ক্রসে ডি-বক্সে উড়ে আসা বল ডিফেন্ডাররা বিপদমুক্ত করতে ব্যর্থ হলে ছয় গজ বক্সে ফাঁকায় পেয়ে যান তিনি। নিখুঁত ভলিতে বল জালে জড়ান চলতি মৌসুমে ইন্টার মিলান থেকে ধারে আসা এই ফরোয়ার্ড। এই মৌসুম শেষে ইকার্দির নতুন ঠিকানা হিসেবে পিএসজিই যে পাকাপোক্ত হচ্ছে তা তার প্রতি ম্যাচের পারফরম্যান্সই বলে দিচ্ছে৷ সব প্রতিযোগিতা মিলে পিএসজির হয়ে ১৪ ম্যাচে এটি তার ত্রয়োদশ গোল। এমন দাবার গুটিকে নিশ্চয়ই হারাতে চাইবেন না টমাস টুখেল!
শেষ মুহূর্তে ৮৯তম মিনিটে নিজের দ্বিতীয় গোল করে দলের বড় জয় নিশ্চিত করেন এমবাপ্পে। চলতি মৌসুমে লিগে এটি তার নবম গোল।
ফ্রান্সের শীর্ষ লিগে এটি টমাস টুখেলের দলের টানা পঞ্চম জয়।  এই জয়ে লিগে ১৭ ম্যাচে ১৪ জয়ে ৪২ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে তারা। ৩৫ পয়েন্ট নিয়ে দুই নম্বরে আছে এক ম্যাচ বেশি খেলা মার্সেই।
পুরোটা পড়ুন
কমেন্ট করুন/দেখুন

ট্রেন্ডিং টপিক