Connect with us

এডিটরিয়াল

কে হবে চ্যাম্পিয়ন?

প্রকাশিত

তারিখ

বায়ার্ন মিউনিখ নাকি পিএসজি কে হাসবে শেষ হাসি অপেক্ষা আর কয়েক ঘন্টার। ছবিঃ বায়ার্ন মিউনিখ
আজ রবিবার মধ্য রাতে উয়েফা চ্যাম্পিয়ান লীগের ইতিহাসে বায়ার্ন মিউনিক ও প্যারিস সেইন্ট জার্মেই (পিএসজি) মধ্যকার ফাইনাল দিয়ে উঠতে যাচ্ছে ৬৫ তম আসরের পর্দা।
পাঁচবারের চ্যাম্পিয়ন বায়ার্ন মিউনিখ, প্রথমবার ফাইনাল খেলতে আসা ফরাসি ক্লাব পিএসজি বায়ার্নের হাই ডিফেন্সিভ লাইন ভেঙে অন্য এক ইতিহাসের জন্ম দিতেই পারে।
পিএসজি ফরোয়ার্ড নেইমারের জাদু একাই ম্যাচের ভাগ্য গড়ে দেয়ার ক্ষমতা রাখে।
মাত্র ৫ বছর আগে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমিফাইনালে একা এক এই নেইমারেই বিধ্বংস হয়েছিলো বায়ার্ন।
অবশ্য ব্রাজিলিয়ান এই তারকা সেই ম্যাচ খেলেছিলেন বার্সার জার্সিতে।
পিএসজির আরেক তুরুপের তাস এমবাপ্পে ২০১৮ সালে ফ্রান্সের বিশ্বকাপ জিতে ইতিমধ্যেই ইতিহাসের অংশ হয়ে গিয়েছেন।
বায়ার্নের প্রেসিং ফুটবল তাদের রক্ষণে অনেক সময় যে ফাঁক তৈরি করে ডানে এমবাপ্পে বনাম খিমিচ আর বাঁ-দিকে দি মারিয়া বনাম আলফন্সো ডেভিস ক্লাবের ৭০ বছরের চিত্র ওলটপালট করতেই পারে।
লেভা, মুলার, ন্যাব্রি, ইভান পেরিসিচ দুর্ধর্ষ চার ফরোয়ার্ডের সাথে রয়েছে বায়ার্নের হাই প্রেসিং ফুটবলই রণনীতি।
এমনকি এখন পর্যন্ত ২৪ গোল করেন লেভা-ন্যাব্রি জুটি পুরোপুরিভাবে ধরা ছোঁয়ার বাইরে নেইমার -এমবাপ্পেদের।
চলতি মৌসুমে লেভার রয়েছে ৫৫ গোল। আর এ বারের চ্যাম্পিয়ন্স লিগে করেছেন ১৫ গোল।
বায়ার্নের আরেক অস্ত্র স্ট্রাইকার মুলার যে কি পরিমান দূর্ধর্ষ প্লেয়ার তা হাড়ে হাড়ে বুঝিয়েছেন বার্সার সাথে গত ম্যাচেই।
পাঁচ বার চ্যাম্পিয়ান লীগের পাশাপাশি পাঁচ বার ফাইনালে ওঠা বায়ার্ন মিউনিখ অভিজ্ঞতা কিংবা অর্জন সব দিক থেকেই আজকের ফাইনালে এগিয়ে থাকবে জার্মান জায়ান্টরা।
পুরোটা পড়ুন
কমেন্ট করুন/দেখুন

ট্রেন্ডিং টপিক