Connect with us

ক্রিকেট

সিলেটকে ৮ উইকেটে হারিয়ে টেবিলের শীর্ষে রাজশাহী

সিলেট থান্ডারকে ৫৫ বল এবং ৮ উইকেট হাতে রেখে হারিয়ে টানা দুই জয়ে টেবিলের শীর্ষস্থানে রাজশাহী রয়্যালস।

প্রকাশিত

তারিখ

সিলেটকে ৮ উইকেটে হারিয়ে টেবিলের শীর্ষে রাজশাহী
বাহারি সব শটে আজও দূর্দান্ত ছিলেন লিটন। ছবিঃ ডেইলি স্টার

বিপিএলে আজ দিনের প্রথম ম্যাচে সিলেট থান্ডারকে ৫৫ বল এবং ৮ উইকেট হাতে রেখে হারিয়েছে রাজশাহী রয়্যালস।

টানা দুই ম্যাচে দুইটি আয়েশি জয় তুলে নিয়ে টেবিলের শীর্ষস্থানে রাজশাহী।

এবারের বিপিএলে টান টান উত্তেজনার ম্যাচ খুব কমই দেখা যাচ্ছে। প্রতিটা ম্যাচই একদম প্রাণহীন, ম্যাড়ম্যাড়ে।

কোন কোন ম্যাচ টেনেটুনে ২০ ওভারেই শেষ। যেখানে টি-টোয়েন্টি মানেই ধুমধাড়াক্কা ব্যাটিং। আর বিপিএল মানে বেশির ভাগ ব্যাটসম্যানের শম্বুক গতির ব্যাটিং।

আজও এর ব্যতিক্রম ঘটেনি। আগে ব্যাট করতে নেমে সিলেট অলআউট হয়েছে ৯১ রানে।

এমনিতেই এবারের বিপিএলে দর্শক টানতে পারছে না। আজ যেমন ছুটির দিনেও শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের গ্যালারি অন্তত চোখে পড়ার মতো দর্শকসংখ্যাও দেখা গেলো না।

অথচ অন্য সময় শুক্রবার বিপিএলের খেলা পড়লে দর্শক জায়গা দেয়া যায়না।

অবশ্য আজকের ম্যাচ দেখলে দর্শক টিভিও বন্ধ করে দিতে পারেন। মাত্র ১৫.৩ ওভারে শেষ সিলেটের ব্যাটিং।

এবং সবচেয়ে দুঃখজনক ব্যাপার হল সিলেটের একজন ব্যাটসম্যানও ২০ এর উপরের ঘরে যেতে পারেন নি।

৮ ওভারে সিলেটের সংগ্রহ ছিল ৩ উইকেটে ৬৩। এরপর মাত্র ৪৭ বলেই গুটিয়ে গিয়েছে সিলেট। এ সময় ৭ উইকেটের বিনিময়ে মাত্র ২৮ রান তুলেছে দলটি।

শুরুটা ভালোই করেছিলেন সিলেটের দুই ওপেনার রনি তালুকদার ও চার্লস।

চতুর্থ ওভারের শেষ বলে আন্দ্রে রাসেলকে উইকেট দেওয়ার আগে চার্লসের সঙ্গে ৩৫ রানের জুটি গড়েন রনি।

চতুর্থ উইকেটে ৩১ রানের জুটি গড়ে বিপর্যয় সামাল দেওয়ার চেষ্টা করেছিলেন মোসাদ্দেক-মিঠুন।

দলের বিপদের সময়ে দুজন আউট হওয়ায় বেশি দূর এগোতে পারেনি সিলেট। দুজনের ব্যাট থেকেই এসেছে সর্বোচ্চ ২০ রান।

হ্যাট্রিকের সুযোগ ছিল অলক কাপালি এবং ফরহাদ রেজার সামনে। পঞ্চম ওভারে শেষ দুই বলে জনসন চার্লস ও জীবন মেন্ডিসকে তুলে নেন কাপালি।

১৪ তম ওভারে ৩ উইকেট নেওয়া ফরহাদ শেষ দুই বলে নিয়েছেন ২ উইকেট।

কিন্তু তাঁর বোলিংয়ে ফেরার আগেই শেষ ২ উইকেট হারিয়ে অলআউট হয় সিলেট।

সিলেটও প্রথম ওভারে ম্যাচ জমিয়ে তোলার ইঙ্গিত দিয়েছিল। স্পিনার নাঈম হাসানের বলে ইনিংসের তৃতীয় বলেই আউট হয়েছেন হজরতউল্লাহ জাজাই।

আরেকটি লো-স্কোরিং ম্যাচের উত্তেজনা মিলিয়ে দিলেন আফিফ হোসেন-লিটন দাস জুটি। মাত্র ১০.৫ ওভারেই ৯১ রান পেরিয়ে যায় রাজশাহী।

দ্বিতীয় উইকেটে ৩৯ বলে ৬২ রানের ঝোড়ো জুটি গড়েন দুজন। ২৫ বলে ৩০ রান করে আফিফ যখন আউট হলেন ম্যাচ ততক্ষণে সিলেটের হাতের বাইরে।

লিটন ও শোয়েব মালিক মিলে জয় তুলে নেওয়ার আনুষ্ঠানিকতাটুকু সেরেছেন।

২৬ বলে ৪৪ রান করে অপরাজিত ছিলেন লিটন। অন্য প্রান্তে ১১ বলে ১৬ রানে অপরাজিত ছিলেন শোয়েব মালিক।

পুরোটা পড়ুন
কমেন্ট করুন/দেখুন

ট্রেন্ডিং টপিক