Connect with us

ক্রিকেট

মাশরাফি ইস্যুতে দু’পক্ষের প্রতিক্রিয়া

প্রকাশিত

তারিখ

এবারই প্রথম পারফরম্যান্সের জন্য বাদ পড়লেন মাশরাফি। ছবিঃ বিডিনিউজ

প্রায় কুড়ি বছরের ক্রিকেট ক্যারিয়ারে অনেকবারই ইনজুরিজনিত কারনে দলে না থাকলেও পারফরম্যান্সের জন্য কখনোই বাদ পড়েননি মাশরাফি বিন মোর্ত্তাজা।

এবার প্রথমবারের মতো সেই তিক্ত অভিজ্ঞতার স্বাদ হজম করতে হচ্ছে ভক্তদের।

ঘরের মাঠে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে আসন্ন ওয়ানডে সিরিজের জন্য ঘোষিত ২৪ সদস্যের প্রাথমিক স্কোয়াডে জায়গা পাননি দেশের এই কিংবদন্তী।

দীর্ঘদিন ধরে তার অবসর ঘিরে আলোচনা-সমালোচনা চলছিলো। তাতে বারবারই নিজের সিদ্ধান্তে অটল থেকে সমালোচনার পাত্রে জল ঢেলেছেন মাশরাফি।

জানিয়েছেন তাকে প্রয়োজন হলে নির্বাচকরা ডাকবেন। না হলে ঘরোয়া ক্রিকেট নিয়েই থাকতে চান তিনি।

তবু এমন সিদ্ধান্ত নেওয়াটা বেশ কঠিন ছিলো সংশ্লিষ্টদের জন্য। অবশ্য জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু বলেছেন দল ঘোষণার আগে মাশরাফির সাথে কথা হয়েছে তার।

‘আমার যতটুকু বলার আছে ওকে বলে দিয়েছি। আমার সাথে ওর আলোচনা হয়েছে। কী আলোচনা হয়েছে আপনাদেরকে তো আমি বলতে পারব না। যতটুকু কথা হয়েছে খুব ভালোই কথা হয়েছে।’

মাশরাফিকে বাদ দিতে একটা যুক্তি দেখাইতেই হতো। সেক্ষেত্রে ২০২৩ বিশ্বকাপের ভাবনাকে সামনে এনেছেন প্রধান নির্বাচক।

তিনি বলেন, ‘এখানে অনেক ইস্যুই এসেছে। টিম ম্যানেজমেন্ট আমাদের পরিকল্পনা দিয়েছে। আমরাও আমাদের পরিকল্পনা নিয়ে অনেক আলোচনা করেছি। আলোচনার পরেই আমরা সিদ্ধান্তের মধ্যে এসেছি। দেশের কথা চিন্তা করে, আগামীতে এগিয়ে যাওয়ার কথা চিন্তা করেই সিদ্ধান্ত নিয়েছি। তরুণদের তো সুযোগ দিতে হবে।’

মাশরাফির প্রতি পূর্ণ সম্মান জানিয়ে তার ক্যারিয়ারের ভবিষ্যৎ প্রসঙ্গে কথা বলতে চাননি নান্ন।

‘ও তো খেলা চালিয়ে যাবে। এটা পুরোপুরি ওর উপর। ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলবে। এখানে আমরা তো বলতে পারি না ওর পারফরম্যান্স কী হবে না হবে। ওর প্রতি আমাদের সম্মান সবসময় আছে। আমাদের দেশের জন্য অনেক কিছু দিয়েছে।’

‘এটা কঠিন এক সিদ্ধান্ত ছিল। তারপরও বাস্তবতা আমাদের মানতেই হবে, সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে। সবাই মিলে সম্মিলিতভাবে আমরা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি। মাশরাফিকে অফ করতে হয়েছে।’

তবে তার জায়গায় সুযোগ পাওয়া তরুণদের গড়ার বড় একটা সুযোগ জানিয়ে নান্নু আরো যোগ করেন,

‘এই যে নতুনভাবে চলা, ওর জায়গায় যে-ই খেলবে তার জন্য বিরাট এক সুযোগ। একজন খেলোয়াড়কে আমাদের গড়ে তুলতে হবে।

দল থেকে বাদ পড়ার পর স্বাভাবিক প্রতিক্রিয়া জানান মাশরাফি।

বাংলাদেশের অন্যতম দৈনিক পত্রিকা দ্য বিজনেস স্ট্যান্ডার্ডকে তিনি বলেন, ‘জায়গাটা পেশাদার। টিম ম্যানেজমেন্ট সিদ্ধান্ত নিয়েছে, আমি এই সিদ্ধান্তকে পেশাদারীভাবে নিচ্ছি। আমার মনে হয় এখানে আর কিছু বলার নেই।’

‘আমি আগেও বলেছিলাম, জাতীয় দলে জায়গা না পেলেও খেলা চালিয়ে যাব। আজও একই কথা বলছি। এর বাইরে অন্য কিছু ভাবছি না।’ এখনো আগের জায়গাতেই অনড় জানিয়ে যোগ করেন মাশরাফি।

পেশাদারি খেলায় এমন কিছু কঠিন বাস্তবতার সিদ্ধান্ত ভক্তদেরও মেনে নিতে হবে। তবে এভাবে মাশরাফির বাদ পড়ার খবর শিরোনামে আসতে পারে তা ক’জনেরই বা ধারণা ছিলো!

পুরোটা পড়ুন
কমেন্ট করুন/দেখুন

ট্রেন্ডিং টপিক