Connect with us

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগ (আইপিএল)

প্রথমবার ফাইনালে দিল্লী ক্যাপিটালস

প্রকাশিত

তারিখ

আইপিএলের ফাইনালে প্রথমবারের মতো উঠে এমন চওড়া হাসিতে মাঠ ছাড়ে দিল্লী ক্যাপিটাল। ছবিঃ এনডিটিভি

স্টয়নিসের অলরাউন্ড পারফরম্যান্স ও রাবাদার আগুনঝরা বোলিংয়ে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদকে ১৭ রানে হারিয়ে আইপিএলের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো ফাইনালে উঠলো দিল্লী ক্যাপিটালস।

টসে জিতে আগে ব্যাট করতে নেমে উড়ন্ত সূচনা এনে দেন দিল্লীর দুই ওপেনার শিখর ধাওয়ান ও মার্কাস স্টয়নিস।

৮.২ ওভারে উদ্বোধনী জুটিতে আসে ৮৬ রান।

২৭ বলে ৩৮ রান করে স্টয়নিস সাজঘরে ফিরলেও ধাওয়ান তখনো উইকেটে তান্ডব চালাতে থাকেন।

দেখা পান আইপিএল ক্যারিয়ারের ৪১ তম ফিফটি। শ্রেয়াস আইয়ারের সাথে গড়েন আরো ৪০ রানের পার্টনারশিপ।

৫০ বলে ৭৮ রানের ইনিংস খেলে যখন সন্দীপ শর্মার এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়েন, স্কোরবোর্ডে তখন দলীয় সংগ্রহ ৩ উইকেটে ১৭৮।

শেষদিকে শিমরন হেটমেয়ারের ২২ বলে ৪২ রানের বিস্ফোরক ইনিংসে ২০ ওভার শেষে ৩ উইকেটে ১৮৯ রান সংগ্রহ করে দিল্লী ক্যাপিটালস।

হায়দ্রাবাদের পক্ষে রশিদ খান, জেসন হোল্ডার ও সন্দীপ শর্মা নেন ১টি করে উইকেট।

পঞ্চম বোলার হিসেবে ছয়ের নীচে ইকনোমিতে ২০ উইকেট নিয়ে আইপিএল মৌসুম শেষ করলেন রশিদ খান।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে স্টয়নিস-রাবাদার বোলিং তোপে পড়ে মাত্র ৪৪ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে নাজেহাল হায়দ্রাবাদ।

আবারো ত্রাতার ভূমিকায় বুক চিতিয়ে লড়াই করেন কিউই অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। ক্রিকেটীয় ব্যাকরণের সুদর্শন শটগুলো চোখের পাতা বন্ধ করতে দিচ্ছিলো না।

ক্রিকেট বোধহয় এজন্যই আমরা দেখি।

জেসন হোল্ডারের সাথে ৪৬ রানের জুটি গড়ার পর আব্দুল সামাদের সাথে যোগ করেন আরো ৫৭ রান।

তুলে নেন টানা দ্বিতীয় ফিফটি। ৪৫ বলে ৬৭ রান করে যখন আউট হন, সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের ফাইনালে যাওয়ার স্বপ্ন তখন প্রায় ভেঙ্গে যাবার উপক্রম।

যদিও আব্দুল সামাদের বিধ্বংসী ব্যাটিংয়ে জয়ের আসা তবু জিইয়ে রেখেছিল হায়দ্রাবাদ। তাতেও বাগড়া বসান কাগিসো রাবাদা।

জেতার জন্য শেষ ১২ বলে ৩০ রানের প্রয়োজন।

১৯তম ওভারে দারুণ বল করে মাত্র ৮ রান দিয়ে ৩টি উইকেট তুলে নেন সাউথ আফ্রিকান এই গতি তারকা।

শেষ ওভারে আনরিখ নর্টিয়া দেন মাত্র ৪ রান। ১৭ রানের জয় পায় দিল্লী ক্যাপিটালস।

আইপিএলের এক আসরে সর্বোচ্চ উইকেট (২৯*) নেওয়ার তালিকায় দুইয়ে উঠে এসেছেন রাবাদা।

ফাইনালে তার সামনে সুযোগ থাকছে ডোয়াইন ব্রাভোর ৩২ উইকেটের রেকর্ড ছাড়িয়ে যাবার।

দিল্লীর পক্ষে কাগিসো রাবাদা নেন ৪টি উইকেট। এছাড়া মার্কাস স্টয়নিস ৩টি ও অক্ষর প্যাটেল নেন ১টি করে উইকেট।

৩৮ রান ও গুরুত্বপূর্ণ ৩টি উইকেট নিয়ে ম্যাচসেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হন মার্কাস স্টয়নিস।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

দিল্লী ক্যাপিটালসঃ ১৮৯/৩ (২০ ওভার) স্টয়নিস ৩৮, ধাওয়ান ৭৮, হেটমেয়ার ৪২

রশিদ ২৬/১, সন্দীপ ৩০/১, হোল্ডার ৫০/১

সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদঃ ১৭২/৮ (২০ ওভার) মনীশ ২১, উইলিয়ামসন ৬৭, সামাদ ৩৩

রাবাদা ২৯/৪, স্টয়নিস ২৬/৩, অক্ষর ৩৩/১

ফলাফলঃ দিল্লী ক্যাপিটালস ১৭ রানে জয়ী।

ম্যান অব দ্য ম্যাচঃ মার্কাস স্টয়নিস (দিল্লী ক্যাপিটালস)।

পুরোটা পড়ুন
কমেন্ট করুন/দেখুন

ট্রেন্ডিং টপিক