Connect with us

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগ (আইপিএল)

পাঞ্জাবকে সঙ্গে নিয়েই চেন্নাইয়ের বিদায়

প্রকাশিত

তারিখ

রুতুরাজ গায়কোয়াড়ের অনবদ্য ফিফটিতে ম্যাচ জেতে সিএসকে। ছবিঃ এনডিটিভি

আগেই প্লে অফে যাওয়ার স্বপ্নভঙ্গ হয়েছিলো চেন্নাইয়ের।

এবার কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবকে ৯ উইকেটে হারিয়ে তাদের সঙ্গী করলো মহেন্দ্র সিং ধোনির দল।

শেষ ম্যাচে জয় দিয়েই টুর্নামেন্ট শেষ করলো সিএসকে।

টসে হেরে আগে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা দারুণ করেছিল পাঞ্জাব। দুই ওপেনার লোকেশ রাহুল ও মায়াঙ্ক আগারওয়াল উদ্বোধনী জুটিতে মাত্র ৫.২ ওভারে তোলেন ৪৮ রান।

তবে ৪৮ থেকে ৭২ এ যেতেই ৪ উইকেট হারিয়ে কিছুটা ব্যাকফুটে চলে যায় পাঞ্জাব।

এর আগে আইপিএলে পাঞ্জাবের পক্ষে এক মৌসুমে সর্বোচ্চ রানের মাইলফলক স্পর্শ করেন কে এল রাহুল।

ব্যাটিং বিপর্যয়ের মধ্যেও উইকেটের অন্যপ্রান্তে দারুণ ব্যাটিং করেন দীপক হুদা। পাঁচ বছর পর দেখা পান আইপিএল ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ফিফটির।

৩০ বলে ৩ বাউন্ডারি ও ৪ ছক্কায় ৬২ রানে অপরাজিত থাকেন তিনি। যা তার আইপিএল সেরা ইনিংস।

২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৫৩ সংগ্রহ করে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব।

চেন্নাইয়ের পক্ষে লুংগি এনগিডি নেন ৩টি উইকেট। এছাড়া রবীন্দ্র জাদেজা, ইমরান তাহির ও শার্দুল ঠাকুর নেন ১টি করে উইকেট।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে উড়ন্ত সূচনা পায় সিএসকে। ফাফ ডু প্লেসিস ও রুতুরাজ গায়কোয়াড়ের উদ্বোধনী জুটিতে ৯.৫ ওভারে আসে ৮২ রান।

৩৪ বলে ৪ বাউন্ডারি ও ২ ছক্কায় ৪৮ রান করে ডু প্লেসিস আউট হয়ে গেলেও বাকি কাজটা সেরে আসেন গায়কোয়াড় ও আম্বাতি রায়ডু।

এর আগে এবারের আসরে টানা তৃতীয় ফিফটি তুলে নেন রুতুরাজ।

আম্বাতি রায়ডুর সাথে তৃতীয় উইকেটে ৭২ রানের জুটি গড়ে ম্যাচ জিতিয়ে আসেন এই সম্ভাবনাময় তরুণ।

৪৯ বলে ৬২ রানে অপরাজিত থাকেন রুতুরাজ। এছাড়া আম্বাতি রায়ডু ৩০ রানে অপরাজিত থাকেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবঃ ১৫৩/৬ (২০ ওভার) রাহুল ২৯, আগারওয়াল ২৬, হুদা ৬২*

এনগিডি ৩৯/৩, জাদেজা ১৭/১, তাহির ২৪/১, শার্দুল ২৭/১

চেন্নাই সুপার কিংসঃ ১৫৪/১ (১৮.৫ ওভার) রুতুরাজ ৬২*, ডু প্লেসিস ৪৮, রায়ডু ৩০*

জর্ডান ৩১/১

ফলাফলঃ চেন্নাই সুপার কিংস ৯ উইকেটে জয়ী।

ম্যান অব দ্য ম্যাচঃ রুতুরাজ গায়কোয়াড় (সিএসকে)।

পুরোটা পড়ুন
কমেন্ট করুন/দেখুন

ট্রেন্ডিং টপিক