Connect with us

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগ (আইপিএল)

চাহালের স্পিন, কোহলি-পাডিকালের ব্যাটিং

প্রকাশিত

তারিখ

কোহলি-পাডিকালের ৯৯ রানের জুটিতেই আর্চারের মত নুইয়ে পড়ে রাজস্থানও। ছবিঃ ইন্ডিয়া টাইমস

চাহালের স্পিন ঘুর্নিতে নাকাল হয়েছিল রাজস্থান রয়্যালসের ব্যাটসম্যানরা। অথচ ব্যাঙ্গালুরুর দুই ব্যাটসম্যান দেবদূত পাডিকাল ও অধিনায়ক বিরাট কোহলি আয়েশ করেই গড়লেন ৯৯ রানের পার্টনারশিপ, ৮ উইকেটে জেতালেন দলকে।

গতকাল ৩ সেপ্টেম্বর দিনের প্রথম খেলায় টসে জিতে আগে ব্যাট করতে নেমে কী দারুণভাবেই না শুরু করেছিল রাজস্থান রয়্যালস।

জস বাটলারের একের পর এক ম্যাজিকাল শটে মিটছিল চোখের তৃপ্তি।

কিন্তু দলীয় ২৭ রানে স্টিভ স্মিথ আউট হবার পর আর ৪ রান যোগ করে সাজঘরের পথ ধরেন বাটলারও।

এরপর উইকেটে এসে কোনো রান না করেই যুজবেন্দ্র চাহালের অসাধারণ রিটার্ন ক্যাচে আউট হন ইনফর্ম সাঞ্জু স্যামসন।

৩১ রানে ৩ উইকেট হারানো রাজস্থানকে খাদের কিনারা থেকে টেনে তোলেন তরুণ মাহিলাল লমরোর। রবিন উথাপ্পার সাথে ৩৯ রানের জুটি গড়ার পর রিয়ান পরাগের সাথে যোগ করেন আরো ৩৫ রান।

চাহালের তৃতীয় শিকার হয়ে সাজঘরে ফেরার আগে খেলেন ৩৯ বলে ৪৭ রানের গুরুত্বপূর্ণ ইনিংস।

এরপর শেষ দিকে রাহুল তেওয়াটিয়া ও জফরা আর্চারের ২১ বলে অনবদ্য ৪০ রানের ঝড়ো পার্টনারশিপে ২০ ওভার শেষে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৫৪ রান সংগ্রহ করে রাজস্থান রয়্যালস।

ব্যাঙ্গালুরুর পক্ষে চাহাল ৩টি, উদানা ২টি ও সাইনি নেন ১টি করে উইকেট।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে ২৫ রানে অ্যারন ফিঞ্চের উইকেট হারালেও আরসিবিকে একেবারে জয়ের বন্দরে নিয়ে যাওয়ার কাজ সারেন তরুণ দেবদূত পাডিকাল ও অধিনায়ক বিরাট কোহলি।

দুজনেই দেখা পান ব্যাক্তিগত ফিফটির। আইপিএল ইতিহাসে একমাত্র ব্যাটসম্যান হিসেবে প্রথম ৪ ম্যাচে তিনটি ফিফটি করার মাইলফলক স্পর্শ করেন পাডিকাল।

তৃতীয় উইকেটে এ জুটির ব্যাট থেকে আসে ৮০ বলে ৯৯ রান।

জফরা আর্চারের বলে বোল্ড হওয়ার আগে ৪৫ বলে ৬ বাউন্ডারি ও ১ ছক্কায় ৬৩ রানের চোখধাঁধানো ইনিংস খেলেন পাডিকাল।

এরপর বাকি কাজটা সেরে আসেন বিরাট কোহলি ও এবি ডি ভিলিয়ার্স।

তাদের ২০ বলে ৩৪ রানের অনবদ্য পার্টনারশিপে ৫ বল ও ৮ উইকেট হাতে রেখে জয় পায় রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু।

৫৩ বলে সর্বোচ্চ ৭২ রান নিয়ে অপরাজিত থাকেন বিরাট কোহলি।

জফরা আর্চার ও শ্রেয়াস গোপাল নেন ১ টি করে উইকেট।

৪ ওভারে মাত্র ২৪ রান দিয়ে ৩ উইকেট নেওয়া যুজবেন্দ্র চাহাল জেতেন ম্যাচসেরার পুরষ্কার।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

রাজস্থান রয়্যালসঃ ১৫৪/৬ (২০ ওভার), বাটলার ২২, লমরোর ৪৭, তেওয়াটিয়া ২৪

চাহাল ২৪/৩, উদানা ৪১/২, সাইনি ৩৭/১

রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুঃ ১৫৮/২ (১৯.১ ওভার), পাডিকাল ৬৩, কোহলি ৭২*, ভিলিয়ার্স ১২*

আর্চার ১৮/১, গোপাল ২৭/১

ফলাফলঃ রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু ৮ উইকেটে জয়ী।

ম্যান অব দ্য ম্যাচঃ যুজবেন্দ্র চাহাল (আরসিবি)।

পুরোটা পড়ুন
কমেন্ট করুন/দেখুন

ট্রেন্ডিং টপিক